মেহেন্দিগঞ্জে ধর্ষননের অভিযোগে সেই গৃহবধুর থানায় মামলা

Wednesday, October 14th, 2020

হিজরা প্রতিনিধি:: নানা জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে বরিশালের আন্ধারমানিক গ্রামের নববধু আটকে রাখার ঘটনায় ধর্ষন ও চাঁদাবাজির অভিযোগ এনে মামলা দায়ের হয়েছে। নববধু নিজেই বাদি হয়ে ১৩ অক্টোবর বিকেলে কাজির হাট থানায় মামলাটি দায়ের করেন।
স্থানীয় ইউপি সদস্য পরান ভুইয়া, রাজিব ফকির, বাবু ওরফে সোহেল বেপারী, নাজমুল হক আকনসহ ৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। কাজির হাট থানার অফিসার ইনচার্জ সাজ্জাদ হোসেন এ তথ্যর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। অভিযুক্তদের গ্রেফতারের জোর চেষ্টা চলছে।
গৃহবধুর ভগ্নিপতি আবুবকর সাংবাদিকদের জানান, মেহেন্দিগঞ্জের আন্ধারমানিক ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা গৃহবধু। নিকটবর্তী বাউশিয়া গ্রামের হাচান ফকির পুত্র রাজিব ফকির, দুলাল বেপারীর পুত্র বাবু ওরফে সোহেল ও হালান আকন পুত্র নাজমুল আকন রোববার গভীর রাতে বাড়ি থেকে নিয়ে গৃহবধুকে আটকে রাখে। সোমবার সকালে ইউপি সদস্য পরান ভুইয়া এবং ফারুক ভ্ইুয়ার উপস্থিতিতে ঐ গৃহবধুকে তার মায়ের কাছে ফিরিয়ে দেয়া হয়।
এ ঘটনার পর পরই গৃহবধু ঘুমের ঔষদ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। বিষয়টি স্থানীয় ভাবে ধামাচাঁপা দিতে চেষ্টা চালায় পরান ভুইয়া, ফারুক ভুইয়া। গৃহবধু অসু¯’ হয়ে পড়লে সোমবার সন্ধ্যায় তাকে হিজলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এর পর পরই ঘটনাটি জানাজানি হয়।
স্থানীয় সূত্র জানায় প্রতিবেশী দুলাল বেপারীর পুত্র সোহেল ওরফে বাবুর সংগে ঐ কিশোরীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। পরিবার তাকে তিন মাস আগে অন্য এক ছেলের সংগে বিয়ে দেন। রোববার রাতে গৃহবধু প্রেমিকের সংগে দেখা করতে তার ঘরে গেলে স্থানীয়রা বাহির থেকে দরজা আটকে দেয়। সকালে ইউপি সদস্য পরান ভুইয়া, ফারুক ভুইয়া গৃহবধুকে উদ্ধার করে তার মায়ের কাছে তুলে দেয়। এ ঘটনায় লোকলজ্জা থেকে বাঁচতে গৃহবধু ঘুমের ঔষদ সেবন করে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়।