অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যার পর বস্তায় ভরে রাখেন পুলিশ স্বামী

Friday, October 9th, 2020

বাগেরহাট প্রতিনিধি  :; বাগেরহাটের শরণখোলায় ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী জোৎসনা বেগমকে (৩৫) হত্যার অভিযোগে সাদ্দাম হোসেন নামের এক পুলিশ সদস্যকে আটক করা হয়েছে।

পারিবারিক কলহের কারণে পুলিশ সদস্য সাদ্দাম হোসেন তার স্ত্রীকে হত্যা করেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। নিহত জোৎসনা ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন।

বৃহস্পতিবার রাতে সাদ্দাম হোসেনকে আটক করে শরণখোলা থানা পুলিশ। পরে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায় বলেন, পারিবারিক কলহের কারণে পুলিশ সদস্য সাদ্দাম হোসেন তার স্ত্রীকে হত্যা করেছেন। আমরা সাদ্দাম হোসেনকে গ্রেফতার করেছি। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

পারিবারিক কলহের কোন পর্যায়ে স্ত্রীকে হত্যার মতো ঘটনা ঘটল তার প্রকৃত কারণ উদঘাটনের চেষ্টা চলছে বলেও জানান ওসি।

অপরদিকে শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইদুর রহমান জানান, বৃহস্পতিবার রাতে সাদ্দাম তার স্ত্রী জোৎসনাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। পরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জাবাই করে লাশ পলিথিনে মুড়িয়ে বস্তায় ভরে লুকিয়ে রাখেন।

রাতেই শরণখোলা থানা পুলিশ গোপনে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল শরণখোলার তাফাল বাড়ি বাজার এলাকার মামুন ভিলা নামের ওই ভাড়া বাড়িতে অভিযান চালায়। সেখান থেকে সাদ্দামকে আটকের পর পরিত্যক্ত একটি ঘর থেকে বস্তাবন্দি জোৎসনার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

তিনি আরও বলেন, শরণখোলা উপজেলার তাফালবাড়ী পুলিশ ফাঁড়ির কনস্টেবল সাদ্দাম হোসেন জোৎসনা বেগমকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। শরণখোলার তাফালবাড়ী পুলিশ ফাঁড়ি সংলগ্ন মামুন ভিলা নামের ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন তারা।

নিহত জোৎসনা বেগম ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। তার বাড়ি খুলনার রূপসা উপজেলায়। বৃহস্পতিবার রাতে জোৎসনার আগের ঘরের সন্তান নিয়ে কলহের জের ধরে তাকে হত্যা করেছেন বলে পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন সাদ্দাম হোসেন।