জমি লিখে নিয়ে বৃদ্ধা মাকে বাড়ি থেকে বাহির করে দেয় সন্তানরা

Monday, March 22nd, 2021

বগুড়া প্রতিবেদক:; সম্পত্তি লিখে নিয়ে ৮০ বছরের অসুস্থ বৃদ্ধা মা আয়েশা বেওয়াকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছেন তিন ছেলে ও তাদের সন্তানরা। পরে আশপাশের লোকজন নির্যাতনের শিকার ওই বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে স্থানীয় সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সোমবার (২২ মার্চ) এই অমানবিক ঘটনাটি ঘটেছে বগুড়ার শেরপুর উপজেলার সুঘাট ইউনিয়নের চকধুলি গ্রামে। এতে আয়েশা বেগম নিজেই থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

শেরপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বৃদ্ধা আয়েশা বেওয়া বলেন, ‘বেশ কিছুদিন আগে স্বামী মহির উদ্দিন প্রামাণিক মারা যান। এরপর বসতবাড়িসহ মোট ৬০ শতক জমির মালিক হন তিনি। ভরণপোষণের আশ্বাস দিয়ে ওই সম্পত্তি লিখে নেন তার ছেলে আল মাহমুদ মালু, শাহ আলী ও আবু হানিফ। কিছুদিন পর তাকে ভরণপোষণ দেয়া বন্ধ করে দেয় তারা। এমনকি চিকিৎসার টাকাও বন্ধ করে দেয়া হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রতিবাদ করলে মেয়ে ও জামাইদের ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন তার ছেলেরা। বিষয়টি নিয়ে গ্রাম্য সালিশি বৈঠক ডাকা হয়। কিন্তু কারো কোনো কথাই মানতে নারাজ তার ছেলেরা। তাই গ্রামের মাতব্বরদের পরামর্শে আদালতের দ্বারস্থ হন তিনি।

বৃদ্ধা আয়েশা বেওয়া আরও বলেন, ‘ভরণপোষণ ও চিকিৎসার কথা বলে সম্পত্তি লিখে নিলেও এখন সবকিছুই দেওয়া বন্ধ দিয়েছে। এমনকি আমাকে বাড়ি থেকেও বের হয়ে যাওয়ার জন্য বলছে। তাই তাদের নামে দেওয়া সম্পত্তি আমি ফিরিয়ে নিতে আদালতে মামলা দায়ের করেছি।’

মারধরের কথা অস্বীকার করে ছেলে আল মাহমুদ মালু বলেন, ‘তার মা বোনদের পাল্লায় পড়েছেন। এমনকি তাদের কু-পরামর্শে আমাদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেছেন। এনিয়ে ঝগড়া-বিবাদ হয়েছে মাত্র। এছাড়া বৃদ্ধা মায়ের ভরণপোষণ ও চিকিৎসার ব্যাপারটি এড়িয়ে যান তিনি।

শেরপুর থানার দায়িত্বে থাকা (ডিউটি অফিসার) পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক নয়ন চন্দ্র উক্ত ঘটনায় অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, ‘আহত ও অসুস্থ বৃদ্ধাকে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। অভিযোগটি তদন্ত করে আইন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।