বাসচাপায় বৌ-শাশুড়ি নিহত

Wednesday, March 25th, 2020

দিনাজপুর প্রতিনিধি:: দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলায় পায়ের সমস্যায় চিকিৎসা নিতে যাওয়ার সময় বাসচাপায় শাশুড়ি ও বৌমা নিহত হয়েছেন।

বুধবার দুপুর ১২টার দিকে বীরগঞ্জ পৌর শহরের ফিশারীর মোড় নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে পায়ের সমস্যায় ভুগছিলেন দিনাজপুরের বীরগঞ্জ পৌর শহরের মৃত বজলুর রশিদের স্ত্রী মোছা. আলিমন বেওয়া (৭০)। সমস্যা একটু বেশি হওয়ায় ছেলের স্ত্রী মোছা. রেহেনা বেগমকে (৩২) নিয়ে বুধবার দুপুরে ব্যাটারিচালিত চার্জারভ্যানযোগে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রওয়ানা হয় চিকিৎসাসেবা নিতে।

পথে বীরগঞ্জ পৌরসভা কার্যালয়ের সামনে দিনাজপুর থেকে ছেড়ে আসা পঞ্চগড়গামী একটি অজ্ঞাত যাত্রীবাহী বাস চার্জারভ্যানটিকে চাপায় দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মোছা. আলিমন বেওয়া মারা যান। হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় আলিমন বেওয়ার বৌমা মোছা. রেহেনা বেগম মারা যান।

এ ঘটনায় ভ্যানচালক লক্ষ্মী রায় (৪৫) এবং অপর যাত্রী মোছা. জাহেদা বেগম (৪৫) আহত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছেন।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একজন নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সাইফুল ইসলাম জানান, এই মুহূর্তে আহতরা আশঙ্কামুক্ত।

নিহত মোছা. আলিমন বেওয়া পৌর শহরের মৃত বজলুর রশিদের স্ত্রী এবং মোছা.রেহেনা বেগম একই এলাকার মো. আফজাল হোসেনের স্ত্রী।

আহত ভ্যানচালক লক্ষ্মী রায় সুজালপুর ইউনিয়নের কোমরপুর গ্রামের মৃত রাজেন রায়ের ছেলে এবং মোছা. জাহেদা বেগম পৌর শহরের সুজালপুর গ্রামের মো.শুকুর আলীর স্ত্রী।

বীরগঞ্জ পৌর মেয়র মো. মোশারফ হোসেন বাবুল প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে জানান, যাত্রীবাহী বাসটি দ্রুত গতিতে ছিল। ঘটনাস্থলে মোড় নেয়ার সময় চার্জারভ্যানটির ওপর তুলে দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ভ্যানটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। ঘটনাস্থলে একজন মারা যান। আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে সেখানে একজন মারা যান।

বীরগঞ্জ থানার এসআই আলন চন্দ্র রায় জানান,নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি। ঘাতক বাসটি পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।