ভারতীয় ৫১৯ জেলের খোজ খবর নিলেন সহকারী হাই কমিশনার

Tuesday, July 9th, 2019


কলাপাড়া প্রতিনিধি :
পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় পায়রা বন্দর কোস্টগার্ডের হেফাজতে থাকা ৩২টি মাছ ধরা ট্রলারসহ ৫১৯ জেলেকে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের কাছে হ¯Íান্তর বিষয়ে গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেনি কলাপাড়া প্রশাসন।
তবে গতকাল সকালে বরিশাল ও খুলনাস্থ ভারতীয় দূতাবাসের সহকারী হাই কমিশনার আর কে রায়নাসহ একটি প্রতিনিধিদল জেলেদের দেখতে কলাপাড়ায় এসেছিলেন। তারা জেলেদের খোঁজ-খবর নিয়ে ফিরে গেছেন। সকালে প্রতিনিধিদল পায়রা কোস্টগার্ড উর্ধতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে জেলেদের খোঁজ-খবর নিয়েছেন বলে কলাপাড়া উপজেলা প্রশাসন নিশ্চিত করেছেন।
কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মুনিবুর রহমান জানান, উত্তাল সাগরে মাছ ধরার সময় ঝড়ের কবলে পড়ে এসব জেলে দিক হারিয়ে বাংলাদেশ সীমানায় প্রবেশ করে। আশ্রয় নেয় রাবনাবাদ চ্যানেলের পায়রা কোস্টগার্ডের কাছে। জেলেদের সঙ্গে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার সাক্ষাত করে সন্তোষ প্রকাশ করেন।
বাংলাদেশ কোস্টগার্ড দক্ষিন জোনের মিডিয়া কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট শাকিল বলেন, ভারতীয় ট্রলার ও জেলে বাংলাদেশ সীমানায় প্রবেশ ও নিরাপত্তা হেফাজতের ব্যাপারে ভারতীয় ডেপুটি হাই কমিশনার ভারতীয় জেলেদের সাথে দেখা করেছেন কিন্তু জেলেদের নিজ দেশে ফেরত যাওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়নি।
কলাপাড়া কোস্টগার্ড সূত্রে জানাগেছে, ভারতীয় জেলেরা কোস্টগার্ডের কাছে নিরাপদ আশ্রয়ে রয়েছে। বর্তমানে সাগর উত্তাল রয়েছে। সাগর এবং আবহাওয়া অনুকূলে আসলেই, উচ্চ পর্যায়ের সিদ্ধান্ত মোতাবেক জেলেদের ভারতীয় জলসীমানায় পৌছে দেয়ার ব্যাবস্থা নেয়া হবে। আশ্রীত ভারতীয় জেলেদের জন্য চাল, ডাল, তেল সহ প্রয়োজনীয় রসদ সরবরাহরে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী আগামী ২৩ জুলাই পর্যন্ত সাগরে সব ধরনের মাছ ধরায় ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞা চলাকালে ভারতীয় এ বিপুলসংখ্যক জেলে ও ট্রলার বাংলাদেশে আসায় এখানকার জেলেরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। কলাপাড়া মৎস্য আড়তদার মালিক সমিতির সভাপতি আনছার মোলøা ও জেলে মো. বাসু মাঝি গতকাল বিকেলে অভিযোগ করে বলেন, সরকার সাগরে ইলিশ আহরণে নিষেধাজ্ঞা দিলেও পাশের দেশ ভারতের জেলেরা ঠিকই সাগরে মাছ ধরা অব্যাহত রেখেছে। এদিকে উদ্ধারকৃত জেলেদের ভাষ্যমতে তারা ভারতের জলসীমায় মাছ শিকার করছিল। আকস্মিক ঝড়ের কবলে পড়ে দিক হারিয়ে তারা বাংলাদেশি জলসীমানায় ঢুকে পড়ে। তার পর তাদের জামাই আদরে রাখা হয়েছে। আর আমাদের জেলেরা ভারতের সীমানায় ঢুকে পড়লে নিশ্চিত জেলের ঘানি টানতে হতো বলে ÿোভ প্রকাশ করেন জেলে ও আড়তদার সমিতির নেতারা।
উলেøখ্য, সাগরে ঝড়ের কবলে পড়ে রবিবার রাতে পটুয়াখালীর মৌডুবী চ্যানেল হয়ে রাবনাবাদ চ্যানেলে চলে আসে ৩২ ট্রলারসহ ভারতীয় জেলেরা। রবিবার ৭ জুলাই পায়রা কোস্টগার্ড সদস্যদের কাছে আশ্রয় নেয়।