চাঁদপুরে গোপনে গোসলের দৃশ্য ধারণের ঘটনায় ছাত্রীর আত্মহত্যা

Saturday, August 17th, 2019

চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে মোবাইলে গোপনে গোসলের দৃশ্য ধারণ করায় অপমানে জান্নাতুল নাঈম ওরফে সুখী (২১) নামে এক কলেজছাত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। তবে পরিবারে দাবি বখাটে হাসান পাটওয়ারী (২২) তাকে হত্যা করে আত্মহত্যার ঘটনা সাজিয়েছেন।

গত রবিবার শাহরাস্তি উপজেলাধীন টামটা দক্ষিণ দক্ষিণ ইউনিয়নের ওয়ারুক পাটওয়ারীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় বখাটে হাসান পাটওয়ারীর (২২) বিরুদ্ধে ‘আত্মহত্যার’ প্ররোচনার অভিযোগে শাহরাস্তি থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জান্নাত রাড়া গ্রামের পাটওয়ারী বাড়ির মশিউর রহমান পাটওয়ারীর মেয়ে। তিনি চাঁদপুর সরকারি কলেজে অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন।

জান্নাতের শ্বশুর বাড়ির লোকজন জানান, ২০১৬ সালের মাঝামাঝিতে জান্নাতুল নাঈম প্রেম করে ওয়ারুক পাটওয়ারী বাড়ির তৌকির আহমেদের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। পরে স্বামী তৌকির সৌদি আরব চলে যান। গ্রামের বাড়িতে জান্নাত ও তার শাশুড়ি পারুল বেগম থাকতেন। ঈদের আগের দিন (১১ আগস্ট) পারুল বেগম ঈদের কেনাকাটা করার জন্য হাজীগঞ্জ বাজারে যান। পারুল বেগম বাজারে যাওয়ার পর পুত্রবধূ জান্নাত ঘরের পেছনে টিউবওয়েলে গোসল করতে যায়। এ সময় একই বাড়ির হাসান পাটওয়ারী দূর থেকে গোপনে জান্নাতের গোসলের দৃশ্য মুঠোফোনে ধারণ করে।

গোসল শেষে জান্নাত ঘরে যাওয়ার পর হাসান ঘরে ঢুকে জান্নাতকে গোসলের দৃশ্য ধারণ করার বিষয়টি জানায়। জান্নাত তাৎক্ষণিক তার শাশুড়ি পারুল বেগম ও প্রবাসে থাকা স্বামী তৌকিরকে ঘটনাটি জানান। পরে তিনি রাগে ক্ষোভে ঘরের আড়ার সাথে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন।

এ ঘটনায় পারুল বেগম বাদী হয়ে বখাটে হাসান পাটওয়ারীকে অভিযুক্ত করে ওই দিন রাতে শাহরাস্তি থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার পরেই হাসান পাটওয়ারি পালিয়ে পালিয়ে যান।

এদিকে, জান্নাতের মরদেহ চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্তের পর ১২ আগস্ট সন্ধ্যায় শ্বশুর বাড়িতে দাফন করা হয়।

তবে জান্নাতের চাচা তাফাজ্জল হোসেন ও মামা কাঞ্চন মিয়া অভিযোগ করে বলেন, জান্নাতের গোসলের দৃশ্য ধারণ করে হাসান তাকে ব্লাকমেইলিং করতে গেছে। ঘরে একা পেয়ে জান্নাতকে হাসান ধর্ষণ করে থাকতে পারে। পরে তাকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলেও তারা অভিযোগ করেন। একই সঙ্গে তারা সুষ্ঠু তদন্ত করে জান্নাত হত্যার রহস্য উৎঘাটন ও দোষী ব্যক্তিকে আইনের আওতায় আনার দাবি করেন।

শাহরাস্তি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ আলম জানান, মূলত গোসলের দৃশ্য ধারণ করার কারণে মেয়েটি আত্মহত্যা করেছেন। প্রাথমিক সুরতহাল প্রতিবেদনে এমনটাই বোঝা যায়। তবে তাকে হত্যা বা ধর্ষণের কোনো আলামত পাওয়া যায়নি।