বরিশালে ৩ স্থান দিয়ে চিংড়ির রেণু পাচার:৭ লাখ চিংড়ির রেণু জব্দ

Friday, May 29th, 2020

বিস্তারিত ধারাবাহিক পর্ব আগামি সপ্তাহে প্রকাশ করা হবে।

জুয়েল কবির :: বরিশালের ৩ টি স্থান দিয়ে লাখ লাখ চিংড়ির রেণু পাচার করা হয়। প্রশাসন, দলীয় নেতা, স্থানী জন প্রতিনিধি ও কতিত সাংবাদিকদের ম্যানেজ করে চলচ্ছে এই রমরমা ব্যবসা। এদিকে
বরিশাল সদর উপজেলার লাহারহাট সংলগ্ন কালাবদর নদীতে অভিযান চালিয়ে সাত লাখ গলদা চিংড়ির রেণু জব্দ করেছে কোস্টগার্ডের সদস্যরা।

পাশাপাশি জব্দ করা হয়েছে চিংড়ির রেণু বহনকরা একটি ট্রলার। শুক্রবার (২৯ মে) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে জব্দকৃত ওই চিংড়ির রেণু কীর্তনখোলা নদীতে অবমুক্ত করা হয়।

কোস্টগার্ড বরিশাল সদর স্টেশনের কমান্ডার মো. আব্দুল আলিম বলেন, বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে ভোলা থেকে সাতক্ষীরা-বাগেরহাট এলাকায় নদীপথে চিংড়ির রেণু পাচার হচ্ছে- এমন খবরে লাহারহাট সংলগ্ন কালাবদর নদীতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় একটি ট্রলার দেখে সন্দেহ হলে থামানোর সংকেত দেয়া হয়। তাবে ট্রালারটি না থামিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। ধাওয়া করে ট্রলারটি আটক করা হয়। এর আগেই রেণু পাচারকারীরা ট্রলার থেকে পানিতে ঝাঁপিয়ে পড়ে পালিয়ে যায়। পরে ট্রলার তল্লাশি করে সাত লাখ গলদা চিংড়ির রেণু পাওয়া যায়।

কমান্ডার মো. আব্দুল আলিম বলেন, উদ্ধার করা সাত লাখ চিংড়ির রেণুর দাম অন্তত ১৪ লাখ টাকা। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরিশাল সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মেহেদী হাসান, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবু সাঈদ, মৎস্য কর্মকর্তা (ইলিশ) বিমল দাসের উপস্থিতিতে জব্দকৃত সাত লাখ রেণু কীর্তনখোলা নদীতে অবমুক্ত করা হয়েছে।