সুশান্তর প্রেমিকা রিয়া গোয়েন্দাদের ৫ প্রশ্নের জবাবে যা বললেন

Saturday, August 29th, 2020

বিনোদন ডেস্ক :: বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু মামলার মূল অভিযুক্ত তার প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তী আপাতত দেশটির তিন কেন্দ্রীয় সংস্থার সাঁড়াশি চাপে রয়েছেন।

তাছাড়া ভারতীয় মিডিয়ার চাপেও নাভিঃশ্বাসের উপক্রম তার।

এরইমধ্যে শনিবার ফের দেশটির কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা সিবিআইয়ের জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হলেন এই বাঙালি অভিনেত্রী।

শনিবার দুপুর দেড়টায় মুম্বাইয়ের ডিআরডিও গেস্ট হাউসে সিবিআইয়ের তদন্তকারী কর্মকর্তাদের জেরার মুখে পড়েছেন রিয়া।

এর আগে শুক্রবার প্রায় ১০ ঘণ্টা রিয়াকে নানা প্রশ্ন করেন সিবিআইয়ের তদন্তকারী কর্মকর্তারা।

গতকাল সেসব প্রশ্নের সন্তোষজনক কোনো জবাব দিতে পারেননি এই অভিনেত্রী। তাই আজ শনিবার আবারও সিবিআইয়ের জেরার মুখে পড়তে হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতের গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস।

এছাড়া ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জি নিউজ বলছে, শুক্রবার রিয়াকে সিবিআইয়ের কর্মকর্তারা জিজ্ঞেস করেন, সুশান্তের সঙ্গে সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করে গত ৮ জুন আপনার চলে যাওয়ার বিষয়টি কি সত্যি? সত্যি হলে এই সম্পর্ক ভাঙনের কারণ কী?

আর এই দুই প্রশ্নের কোনো পরিষ্কার উত্তরই দিতে পারেননি রিয়া।

এরপর সিবিআই প্রশ্ন করে, ১৪ জুন দুপুর ২টায় সুশান্তের দেয়া ফোনকলটা কেন ধরেননি তিনি? সুশান্তকে ছেড়ে চলে যাওয়া আগে তার মানসিক পরিস্থিতি অবনতির বিষয়ে কেন তার বোন কিংবা তার ঘরের কর্মীদের জানাননি তিনি? গত ৮ থেকে ১৪ জুন পর্যন্ত সুশান্তের সঙ্গে কোন যোগযোগ হয়েছিল?

এসব প্রশ্নের জবাবে দেয়া রিয়ার বক্তব্য মনে ধরেনি সিবিআইয়ে।

বারবার নিজেকে নিষ্পাপ দাবি করে সিবিআইকে রিয়া বলেন, ৮ থেকে ১৪ জুনের মধ্যে যা হয়েছে তার কোনো কিছুই অবগত নই। সুশান্ত ডিপ্রেশনের রোগী ছিলেন। নিজের আসন্ন সিনেমায় অর্থসংক্রান্ত ঝামেলা নিয়ে গভীর অবসাদে ভুগতেন। তার মেডিকেল রিপোর্ট তাই বলছে। সেইসঙ্গে তার পারিবারিক বিভিন্ন সমস্যাও ছিল।

রিয়া বলেন, সুশান্তের ব্যাংকের টাকা-পয়সা লেনদেনের যে গুজব উঠেছিল তাও আমি আপনাদের কাছে পরিষ্কার করে দিয়েছি। আমি মনে করি এই মামলায় জড়িয়ে আমাকে শুধু শুধু হেনস্থাই করা হচ্ছে। দয়া করে আমাকে মুক্তি দিন।

প্রসঙ্গত, ১৪ জুন মুম্বাইয়ের বান্দ্রায় নিজ বাসায় সিলিংয়ে ঝুলন্ত মরদেহ পাওয়া যায় সুশান্তের। প্রাথমিক ময়নাতদন্তে জানানো হয়, সুশান্ত আত্মহত্যা করেছেন। সেই রিপোর্ট না মেনে সুশান্তের হত্যার জন্য বেশ কয়েকজন বলি সেলিব্রেটিদের দায়ী করে মামলা করেন সুশান্তভক্তরা। এর কয়েকদিন পর আত্মহত্যায় প্ররোচনা দান, অর্থ লোপাটসহ নানা অভিযোগ এনে রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেন সুশান্তের বাবা কেকে সিং। বিহার পুলিশের কাছে দায়ের করা সেই এফআইআরের ভিত্তিতেই তদন্ত শুরু করেছে সিবিআই।