মাছের দাম চাওয়ায় ৪ মাছ ব্যবসায়ীকে পিটিয়েছে কাউন্সিলরের ভাই

Sunday, October 11th, 2020

বিজয় নিউজ:; বরিশাল নগরীর রূপাতলী এলাকায় মাছের দাম চাওয়ায় ৪ মাছ ব্যবসায়ীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী মামুন মোল্লার বিরুদ্ধে।

শনিবার রাতের দিকে এই ঘটনার পর প্রতিবাদে মাছ ব্যবসায়ী সহ বাজারের সকল দোকানী দোকান বন্ধ করে প্রতিবাদ জানায়।

হামলাকারী মামুন মোল্লা ও তার সহযোগী সোহেল বিশ্বাস স্থানীয় আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। তারা আরো জানান, মামুন ২ বছর আগে ছাত্রদলের রাজনীতি ছেড়ে আওয়ামী লীগে যোগ দেয়। তার বড় ভাই জাকির মোল্লা ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এবং মেঝ ভাই মনির মোল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক।

হামলায় আহত হন মাছ ব্যবসায়ী জসিম, সমীর, দেলোয়ার ও আনিচ।

তারা জানান, বরিশাল-পটুয়াখালী মহাসড়কের পাশে রূপাতলী হাউজিংয়ের পরিত্যক্ত জায়গায় অবৈধভাবে বাজার বসিয়ে প্রতি দোকান থেকে দেড়শ’ এবং বড় দোকান হলে ২শ’ টাকা করে আদায় করছে মনির মোল্লা ও তার ভাই মামুন মোল্লা। বাজারের নিয়ন্ত্রক হওয়ায় মামুন মোল্লা মাছ ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে মাছ নিয়েও টাকা দেন না। বাজারের মাছ ব্যবসায়ী সমীরের কাছ থেকে ৬শ’ টাকা কেজি দরে ৩ কেজি মটকা চিংড়িং এবং জসিম ও আনিচের কাছ থেকে অন্যান্য মাছ নিয়ে টাকা না দিয়ে চলে যাচ্ছিলো মামুন মোল্লা। এ সময় তারা টাকা চাওয়ায় মামুন ও তার সহযোগী সোহেল বিশ্বাস ঐ ৪ মাছ ব্যবসায়ীকে মারধর করে।

বাচ্চু খান নামে আরেক মাছ ব্যবসায়ী জানান, মামুন মোল্লা তার কাছ থেকে দেড় বছর আগে দেড় হাজার টাকার মাছ নিয়ে ২ মাস আগে ৫শ’ টাকা পরিশোধ করে। এখনও তার কাছে মাছের ১ হাজার টাকা পান তিনি। এভাবে বাজারের অন্যান্য ব্যবসায়ীরাও মামুনের কাছে টাকা পায়। বকেয়া টাকা চাইলে মামুন দোকানীদের সাথে দুর্ব্যবহার করে বলে অভিযোগ তাদের।

এ ঘটনার পর বাজারের সকল ব্যবসায়ী দোকান বন্ধ করে প্রতিবাদ করে। শত শত ক্রেতা বাজারে গিয়েও দোকান বন্ধ থাকায় কেনাকাটা করতে পারেনি। খবর পেয়ে রাতে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাকির মোল্লা ঘটনাস্থলে গিয়ে মামুনের সহযোগী সোহেল বিশ্বাসকে কয়েকটি চড় থাপ্পর দিলেও তার ভাই মামুনকে কিছুই বলেননি বলে জানিয়েছেন হামলার শিকার মাছ ব্যবসায়ীরা।

কাউন্সিলরের আশ্বাসে মাছ পঁচে যাওয়ার আশংকায় রাত ৮টার দিকে ফের বাজারে বেঁচাবিক্রি শুরু করেন তারা। এভাবে অসহায়ত্বের মধ্যেই তাদের ব্যবসা করতে হচ্ছে বলে দাবী তাদের।

ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাকির মোল্লা সাংবাদিকদের জানান, বাজারে টুকটাক ওরকম ঘটনা ঘটে থাকে। হামলাকারী সোহেলকে ডেকে পিটিয়েছেন। বিবাদ মিটিয়ে দিয়েছেন। ভাইকে কেন কিছু বলেননি জানতে চাইলে জাকির মোল্লা বলেন, তার ভাই মামুন কিছু করেনি। মাছ বিক্রেতারা যে সব সত্যি বলে তাও নয়।

কোতয়ালী মডেল থানার ওসি মো. নুরুল ইসলাম বলেন, রূপাতলী বাজারে মাছ ব্যবসায়ীর উপর হামলার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেবে পুলিশ।