বাবার কবরে মাটি দিতে দেয়নি এরিককে: বিদিশা

Wednesday, July 17th, 2019

সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কবরে ছোট ছেলে এরিককে এক মুঠো মাটি দেয়ার সুযোগও দেয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন তার (এরশাদ) সাবেক স্ত্রী বিদিশা এরশাদ।

বুধবার দুপুর ১২টা ২০ মিনিটে নিজের ফেসবুক পেইজে দেয়া এক স্ট্যাটাসে এই অভিযোগ করেন তিনি। বিদিশা এ নিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এরশাদ তার ছেলে এরিককে পল্লী নিবাস দিয়ে গেছেন এমন দাবি করে বিদিশা ফেসবুকে লিখেন, এই পল্লী নিবাস তার আদরের ছেলে এরিককে দিয়ে গেছেন তার বাবা। কিন্তু এক মুঠো মাটি ও তার বাবার কবরে দিতে দেয়নি এরিককে।

স্ট্যাটাসে তিনি রংপুরের মানুষের কাছে সারা জীবন কৃতজ্ঞ থাকার কথাও জানান।

যুগান্তরের পাঠকদের জন্য বিদিশা এরশাদের স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

‘চির নিদ্রায় শায়িত হলেন পল্লীবন্ধু পল্লী নিবাসে। যে পল্লী নিবাস তার আদরের ছেলে এরিককে দিয়ে গেছেন তার বাবা। কিন্তু এক মুঠো মাটিও তার বাবার কবরে দিতে দেয়নি এরিককে। রংপুরের মানুষের প্রতি আমাদের কৃতজ্ঞতা থাকবে সারা জীবন।’

এর আগে মঙ্গলবার এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে বিদিশা লিখেছেন, ছেলে এরিকের কান্নায় পাথর গলে যায়। কিন্তু রাজনীতিবিদদের হৃদয় গলে না।

মূলত বাবার মৃত্যুর শোকে শোকাহত এরিকের সঙ্গে এই কঠিন সময় মা বিদিশাকে দেখা করতে না দেয়ায় তিনি ক্ষুব্ধ। পাশাপাশি এরশাদকে শেষ দেখা দেখতে তাকে বাধা দেয়ার অভিযোগও তুলেছেন বিদিশা।

স্ট্যাটাসে রংপুরে এরশাদের দাফনের বিষয়ে সেখানকার নেতাকর্মীদের দাবির প্রতি একাত্বতা প্রকাশ করেন বিদিশা। মঙ্গলবার বেলা ১১ টায় ফেসবুকে দেয়া বিদিশার স্ট্যাটাসটি তুলে ধরা হলো-

‘তাই যেন হয়, আমিও তাই চাই। লক্ষ লক্ষ নেতাকর্মীদের মতো রংপুরের মাটি যেন হয় এরশাদের শেষ ঠিকানা। সহধর্মিনী থাকতে বহুবার পল্লী নিবাসে বারান্দায় ছেলে এরিককে কোলে বসিয়ে উনি আমাকে বলেছিলেন, ‘তুমি আমার ছোট, দেখ আমার মৃত্যুও যেন আমার ছেলের কাছে থেকে দূরে না রাখে। আমার কবর আমি এই পল্লী নিবাসে চাই। রংপুরের মানুষের ভালোবাসা প্রতিদান আমি দিতে পারিনি আজও। রংপুরের মানুষ আমার কবরে এসে দোয়া করবে, এটাই আমার চাওয়া।’