সত্য উদঘাটনের দাবি

Wednesday, October 9th, 2019

গত ৮ অক্টোবর বিভিন্ন অনলাইন ও ৯ অক্টোবর বরিশালের বিভিন্ন স্থানীয় পত্রিকায় হিজলায় যুবককে নির্যাতন করে মলমূত্র খাওয়ানোর ভিডিও ভাইরাল শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। সংবাদে হিজলা উপজেলার হরিনাথপুর গ্রামে আজম বেপারী নামের যুবক ঝাড়-ফুক দিয়ে গ্রামের মেয়ে ও বৌদের সাথে অনৈতিক কর্মকান্ড করে। সম্প্রতি সে স্থানীয়  জহির খান এর স্ত্রী পারভীন বেগম ও তার মেয়ের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্ক করে। এবং পারভীণ বেগমকে নিয়ে পলিয়ে যায়।

এর কিছুদিন পর তারা পুনরায় এলাকায় ফিরে আসে। আজম বেপারী তার এই অপকর্মের কথা নিজেই স্বিকার করে ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে। মুলত্র এই ঘটনায় জড়িত ব্যাক্তিদের সাথে তার আর্থিক কোন লেনদেন এর বিয়য় ছিল না। শুধু মাত্র ওঝা গিড়ি ও মানুষের ক্ষতি সাধনের বিষয় নিয়ে এমন ঘটনা ঘটেছে। তবে এমন ন্যাক্কার জনক ঘটনায় হিজলা উপজেলাবাসী ধিক্কার জানিয়েছেন। আজম বেপারীর ঝাড়-ফুর বিষয় সম্পর্কে স্থানীয় মেম্বার , চেয়ারম্যান বিষয়টি অবগত রয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান আঃ লতিফ খান এর কাছে এলাকাবাসী আজম বেপারীর বিরুদ্ধে বিচার দেয়। তখন চেয়ারম্যান আজমকে ডেকে পাঠালেও সে তাতে কর্ণপানত করেনি বলে জানায় এলাকাবাসী। উক্ত ঘটনায় প্রকৃত আসামীদের আটক করেছে পুলিশ।

তবে মামলায় কিছু অজ্ঞাত ব্যাক্তির কথা উল্লেখ করা হয়েছে। হিজলা উপজেলার বাসিন্দারা এর সঠিক বিচার দাবি করে। কিন্তু এই মামলায় যাতে প্রকৃত আসামীদের বাদ দিয়ে অন্য নিরিহ মানুষদের আসামী করা না হয় তার জন্য প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন করেছে এলাকাবাসী।

                                                                                                      নিবেদক

                                                                                                     এলাকাবাসী