বিজয় নিউজে সংবাদ প্রকাশের পরে বরিশালে যুবককে মলমূত্র খাওয়ানোর ঘটনায় যুবলীগ নেতাসহ আটক ৩

Tuesday, October 8th, 2019

  (ভিডিও নিচে দেখুন)

বিজয় নিউজ:: বরিশাল: বরিশালের হিজলা উপজেলায় আজম ব্যাপারি (২৬) নামে এক যুবককে হাত-পা বেঁধে মলমূত্র খাওয়ানোর অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের বিরুদ্ধে। স্থানীয় এক যুবলীগ নেতার নেতৃত্বে সাত থেকে আটজন মিলে পূর্ব শত্রুতার জেরে ওই যুবককে মলমূত্র খাওয়ানোর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

এরপর হিজলা উপজেলার হরিনাথপুর ইউনিয়নের তালতলা সড়কে সংঘটিত এ ঘটনায় মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের দুই ওয়ার্ড নেতাসহ তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃতরা হলো- উপজেলার হরিনাথপুর ইউনিয়নের টুমচর গ্রামের খালেক সিকদারের ছেলে ও স্থানীয় যুবলীগের ওয়ার্ড সদস্য মাহবুব সিকদার, একই এলাকার শরিফ মাতুব্বরের ছেলে ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড এলাকার স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুর রশিদ মাতুব্বর এবং কবির সরদার।

জানা যায়, গত সপ্তাহে হিজলা উপজেলার হরিনাথপুর তালতলা টুমচরের বাসিন্দা ও তেল ব্যবসায়ী মহিউদ্দিন ব্যাপারির ছেলে আজম ব্যাপারির হাত-পা বেঁধে স্থানীয় যুবলীগ নেতা মাহবুব সিকদারের নেতৃত্বে বেশ কয়েকজন তার মুখে মলমূত্র ঢেলে দেয়। পরে ওই ঘটনাটি মঙ্গলবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

ভিডিওতে দেখা যায়, আজম ব্যাপারিকে হাত-পা বেঁধে রাস্তার ওপর ফেলে রাখা হয়েছে। তার চারদিক ঘিরে দাঁড়িয়ে আছে আরও সাত থেকে আটজন। এর মধ্যে একজন আজমের বুকের ওপর পা দিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। কিছুক্ষণের মধ্যেই যুবকের বুকে পা দিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা ওই ব্যক্তিটি মলমূত্র নিয়ে তা জোরপূর্বক আজমের মুখে ঢেলে দেওয়া দিচ্ছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, হরিনাথপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য মাহবুব সিকদারের নেতৃত্বে টুমচর এলাকার স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আব্দুর রশিদ মাতব্বর, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শাহারিয়ার বাদল, মো. সোলায়মান, মো. জহির, কবির সরদারসহ সাত থেকে আটজন এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত।

এ দিকে, স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, যুবক আজমের সঙ্গে অভিযুক্তদের মধ্যে জহির তেলের ব্যবসা করতেন। পরে তারা জমির ব্যবসাও করেন। ওই ব্যবসা নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে এ ঘটনা ঘটেছে।

অপর একটি সূত্রে জানিয়েছে, যুবক আজম এলাকার মহিলাদের ঝাড়ফুঁকে ক্ষতি করার জেরে এ ঘটনা ঘটেছে।

ঘটনার মূল হোতা ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য মাহবুব সিকদার স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, আজম ব্যাপারি ঝাড়ফুঁক দিয়ে গ্রামের নারীদের সঙ্গে অনৈতিক কর্মকাণ্ড করে। ওই ঘটনায় তারা আজমের মুখে মলমূত্র ঢেলে দিয়েছেন।

তবে, আজম ব্যাপারির স্বজনেরা জানান, অভিযুক্তরা স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী হওয়ায় ঘটনার পর অভিযোগ না দিয়ে আজম এলাকা ছেড়ে গেছেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে হিজলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আমিনুল ইসলাম বলেন, এমন একটি ঘটনা ঘটেছে। তবে, যাকে নিয়ে ঘটনা সেই আজম বর্তমানে উধাও হয়ে গেছে। এ ব্যাপারে পুলিশ তদন্ত করেছে। পাশাপাশি তিনজনকে ইতোমধ্যেই আটক করা হয়েছে।

যুবককে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের সত্যতা স্বীকার করে হিজলা থানার ওসি অসীম কুমার সিকদার জানান, এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনার শিকার আজম ব্যাপারির বাবা মহিউদ্দিন ব্যাপারি বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করছেন। ইতোমধ্যেই ঘটনার সঙ্গে জড়িত ছয়জনকে সনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে।

ওসি বলেন, নিজেদের মধ্যে শত্রুতায় এমন ঘটনা ঘটেছে। আজম ঝাড়ফুঁক করত। সে আটককৃত মাহবুব সিকদারের ক্ষতি করবে জেনে মাহবুবের নেতৃত্বে ঘটনাটি ঘটানো হয়েছে। বর্তমানে আজম কিশোরগঞ্জে চিল্লায় রয়েছেন। এ সময় তিনি আসলেই প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ সময় বর্তমানে পুলিশ ঘটনাস্থলে অবস্থান করছেন বলেও উল্লেখ করেন তিনি।