৫ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

ধর্মপাশায় নকল বীজ ধানের সয়লাপ প্রতারিত কৃষকরা

আপডেট: নভেম্বর ১২, ২০২২

গিয়াস উদ্দিন রানা,ধর্মপাশা(সুনামগঞ্জ):: সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলায় ডিলার বিহীন অসাধু বীজ ধান ব্যবসায়ীরা বিএডিসি ব্রি ৮৯ জাতের বীজ ধানের প্যাকেট খোলে ওই প্যাকেটে প্রাইভেট কোম্পানির খালি প্যাকেটে ৮৮ জাতের ধান বানিয়ে কৃষকদের কাছে চড়া দামে বিক্রি করছে বলে একাধিক অভিযোগ পাওয়া গেছে।
ধর্মপাশায় ডিলার বিহীন অসাধু বীজ ধান বিক্রেতা বিএডিসি ৮৯ জাতের বীজ ধানের প্যাকেট পাল্টিয়ে বিভিন্ন প্রাইভেট কোম্পানীর প্যাকেটে ৮৮ জাতের বীথি সীট, টাঙ্গাইল-মধুপুর ব্র্যান্ডের নাম করে নকল বীজ ধান চড়া দামে কৃষকদের কাছে বিক্রি করছে বলে একাধিক কৃষকদের অভিযোগ। এতে বোরো চাষী কৃষকরা একদিকে প্রতারিত হচ্ছে অপর দিকে লক্ষমাত্রা উৎপাদন ব্যহত হওয়ার আশঙ্খা দেখা দিয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার ধর্মপাশা উপজেলা সদর বাজারে ডিলার বিহীন বীজ ধান ব্যবসায়ী খুচরা সার বিক্রেতা সেলিম কৃষকদের সাথে প্রতারনার মাধ্যমে এসব নকল বীজ ধানী বিক্রি করছে। এতে কৃষকরা এক দিকে প্রতারিত হচ্ছে। অপর দিকে উৎপাদন লক্ষমাত্রা ব্যহত হওয়ার আশঙ্খা রয়েছে। কৃষকদের
অভিযোগের প্রেক্ষিতে উপজেলা কৃষি উপসহকারি উদ্ভিদ সংরক্ষন কর্মকর্তা মোঃ কামরুল ইসলাম বাজার পরিদর্শন করে সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ধর্মপাশা বাজার খুচরা সার বিক্রেতা মোঃ সেলিমের দোকানে এসব নকল বীজ ধানের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এসব নকল ও ভুয়া বীজ ধান বিক্রি করা বন্ধ করেদিয়েছি।
টাঙ্গাইল মধুপুর বিথী সীড প্রাইভেট কোম্পানীর মালিক বেল্লাল হোসেন সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ওই ধান গুলো যেসব চাষিদের কাছ থেকে সংরহ করেছি তারা বলেছেন ৮৮ জাতের ধান। তাই ওই ধান আমার পাইভেট কোম্পানীরনী বিথী ৮৮ সীড এর প্যাকেটে ভরে বাজার জাত করেছি। ধর্মপাশায় বীজ বিক্রেতা সেলিমের কাছে ২ মেঃটন ধান বিক্রি করেছি ওই ধান রিটান নিয়ে আসব।
কিন্তু যেসব কৃষকরা ওই নকল বীজ ধান নিয়ে প্রতারিত হয়েছেন তাদের কিহবে।

10 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন