৫ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার

শিরোনাম
কৃষকের ধানের মণ কেজিতে ৪৩ , ব্যবসায়ীর সাড়ে ৪০ কেজিতে বরিশাল শায়েস্তাবাদ চুড়ামন কমিউনিটি ক্লিনিকে থাকেনা ডাক্তার থাকেনা থোলা! দেখার কেউ নেই (পর্ব-১) ছাতা ধরে রাখলেন তরুণী রিকশাচালকের মাথায় হিজলার মেঘনায় ভাঙ্গন শুরু-ঝুকিতে পাঁচটি স্কুল-হুমকির মুখে উপজেলা প্রশাসনিক ভবণ সরকারের পূরণ হতে পারে মন্ত্রিসভার ‘শূন্যস্থান’ শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হকের ১৪৭ তম জন্মবার্ষীকিতে জীবন কর্মে পথচলা তথ্য হিজলা ডাক বিভাগের দুর্নীতির-অনিয়মের হালখাতা খুলছে ডাক বিভাগ – পর্ব ০২ আই ডি এল সি ফাইন্যাস সরকারি নির্দেশ অমান্য করে আদায়ের করে কিস্তি ,মাঠ কর্মীদের দেখে ব্যবসায়ীরা পালায়! (২য় পর্ব) বরিশালের  হিজলার মানচিত্রে শকুনের থাবা॥একক আসন মেহেন্দিগঞ্জ !(১ম পর্ব)

হিজলার ট্রলারে ডাকাতি কোটি টাকা লুট হামলায় আহত – ৫ (ভিডিওসহ)

আপডেট: জুলাই ৮, ২০২১

সাইফুল ইসলাম হিজলা(বরিশাল):: বরিশালের হিজলা উপজেলার একটি ট্রলার বরিশালে যাত্রা পথে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ৭ জুলাই বুধবার বরিশালের উদ্দেশ্য যাত্রা করে সকাল সোয়া ৭ টার দিকে মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার কাজিরহাট থানার সীমানা বামনেরচর এলাকার লাল বয়া নামক স্থানে জলদস্যুর আক্রমনের স্বীকার হন। ট্রলারের মাঝি সহ পাঁচ সদস্য আহত হয়,লুট হয় তাদের কাছে থাকা প্রায় কোটি টাকা।নির্বিগ্নে পালিয়ে যায় জলদস্যু ডাকাত সদস্যরা। এ ব্যাপারে কিছুই জানেনা হিজলা কোস্টগার্ড । আহত মাঝি জুয়েল বয়াতি, রুবেল বয়াতি, মাইদুল বয়াতি, জাহাঙ্গীর বয়াতি হিজলা হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। অপর জন সোহাগ সরদার প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে বাড়িতে অবস্থান করছে।
ট্রলারের মাঝি আহত জুয়েল বয়াতি জানান, বুধবার হিজলা থেকে 5 টি হাটের মুদি মালামাল সরবরাহের জন্য বরিশালের উদ্দেশ্যে যাত্রা করছিলেন। সকাল সোয়া ৭ টার দিকে ট্রলারটি মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার বামনেরচর এলাকার লাল বয়ার কাছাকাছি আসলে ১৬ জনের একটি জলদস্যু, ডাকাতদল দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তাদের উপর হামলা চালিয়ে আহত করে বিভিন্ন দোকানের পণ্য কেনার জন্য তার কাছে থাকা প্রায় কোটি টাকা নিয়ে যায় ডাকাতরা।
ট্রলারে থাকা হিজলা গৌরব্দী ইউনিয়নের ইউপি সদস্য ইসমাইল সরদার জানান, তিনি তার পরিবারের সদস্যদের চিতিৎসার জন্য ট্রলারে যাচ্ছিলে। তাকেও জলদস্যুরা আহত করে কাছে থাকা ৪০ হাজার টাকাও নিয়ে যায়।
মাঝি জুয়েল আরো জানান, এই পথে প্রতি সপ্তাহে হিজলার ৫ টি হাটের পণ্য ট্রলারে সরবরাহ করা হয়। এজন্য কোস্টগার্ডকে নিয়মিত চাঁদা দিয়ে থাকেন নদীপথের নিরাপত্তার জন্য। অপর মাঝি নিজাম গাজী ক্ষোভ নিয়ে জানান নদীপথ দেখার জন্য কোস্টগার্ড এবং নৌ পুলিশকে দায়িত্ব দেয়া সত্ত্বেও আমরা থাকি উপেক্ষিত। এর আগেও পাঁচ বার একই স্থানে ডাকাতের হামলার শিকার হই। কিন্তু আমরা কারো সহায়তা পাইনি।
সোহাগ মাঝি জানান হিজলা উপজেলার 7 টি ট্রলার সপ্তাহের দু দিন বরিশাল এ পথে যাত্র করে। বার বার একই স্থানে জলদস্যুর কবলে পড়েন তারা। শুধু আজকে নয়, প্রতিনিয়ত এ ঘটনা ঘটে। মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে আবুল খা, ওমর মাঝি, জুয়েল জলদস্যু ডাকাতের আক্রমনের স্বীকার। তিনি নিজেও একই স্থানে ডাকাতের হামলায় আহত হয়ে একরাত নদীতে ভাসছিলেন বলে দাবি তার।পার্শ্বেই কোষ্টগার্ড ভাসমান টিম। আজপর্যন্ত আমাদের সহায় এগিয়ে আসেনি কেউ। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত হিজলা, কাজির হাট এবং মেহেন্দিগঞ্জ তিন থানায় মামলা নিয়ে রশি টানা টানি চলছিল।
হিজলা নৌপুলিশের আই সি সোহেল রানা জানান, আমরা বিষয়টি জেনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। স্থানটি মেহেন্দিগঞ্জের ভেতরে। বিষয়টি তাদের।

134 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন