১৮ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

শিরোনাম
বরিশাল শায়েস্তাবাদ চুড়ামন কমিউনিটি ক্লিনিকে থাকেনা ডাক্তার থাকেনা থোলা! দেখার কেউ নেই (পর্ব-১) ছাতা ধরে রাখলেন তরুণী রিকশাচালকের মাথায় হিজলার মেঘনায় ভাঙ্গন শুরু-ঝুকিতে পাঁচটি স্কুল-হুমকির মুখে উপজেলা প্রশাসনিক ভবণ সরকারের পূরণ হতে পারে মন্ত্রিসভার ‘শূন্যস্থান’ শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হকের ১৪৭ তম জন্মবার্ষীকিতে জীবন কর্মে পথচলা তথ্য হিজলা ডাক বিভাগের দুর্নীতির-অনিয়মের হালখাতা খুলছে ডাক বিভাগ – পর্ব ০২ আই ডি এল সি ফাইন্যাস সরকারি নির্দেশ অমান্য করে আদায়ের করে কিস্তি ,মাঠ কর্মীদের দেখে ব্যবসায়ীরা পালায়! (২য় পর্ব) বরিশালের  হিজলার মানচিত্রে শকুনের থাবা॥একক আসন মেহেন্দিগঞ্জ !(১ম পর্ব) বরিশাল হিজলায় রাজনীতি না ভিক্ষা চুরি নীতি

ধর্মপাশায় ভারতের সীমান্তে চুরাই পথে রাতের আধাঁরে গরু আসছে

আপডেট: জুলাই ৩০, ২০২১

গিয়াস উদ্দিন রানা,ধর্মপাশা(সুনামগঞ্জ)::  সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলাধী ভারতের সীমান্তবর্তী বংশীকুন্ডা উত্তর ইউনিয়নের করইবাড়ী, মাঝেরচড়া ও কাইতাকোনা নামক স্থান দিয়ে সিন্ডিকেট চুরাকারবারিরা রাতের অন্ধকার কাঁটা তারের উপরে বাশেঁর চাটাই বসিয়ে গরুর হাত-পা বেধে ওই চাটাই এর উপর দিয়ে গরু পাঁচার করছে। এসব ভারতীয় গরু স্থানীয় বাজারগুলোর চাহিদা পূরন করে ট্রাক যোগে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা শহরে রপ্তানী করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে অসাধু চুরা কারবারি একটি চক্র।
ফলে প্রত্যান্ত গ্রামাঞ্চলে গরু চুরের উপদ্রব বেড়েই চলছে। গরু চুরের অর্থাচারে কোন কোন গ্রামবাসী রাত জেগে পাহাড়া দিচ্ছেন বলেও জানা যায়।
ভারতের সীমান্ত এলাকায় বংশীকুন্ডা উত্তর ইউনিয়নের কাইতাকোনা, করইবাড়ী, মাঝেরচড়া,রূপনগর, ইছামারি, বাঙালভিটা, মহেষখলা, সাউদপাড়া, বাকাতলা ও ঘিলাগড়া গ্রামের একটি চক্র এবং বংশীকুন্ডা দক্ষিন ইউনিয়নের কালাঘর ও দাতিয়ারপাড়া গ্রামের একাধিক চুরাচালানি উপজেলার সেলবরষ ইউনিয়নের একাধিক চুরাচালানিসহ বহিরাগত চুরাচালানিদের নিয়ে একটি সিন্ডিকেট তৈরী করেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মহেষখলা বাজার এর বাসিন্দা বলেন, চুরাচালানি ব্যবসায়িদের সহযোগীতা করছেন সাবেক এক ইউপি চেয়ারম্যান।
এব্যাপারে বংশীকুন্ডা উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ বিল্লাল হুসাইন তিনি বলেন, অনেক আগে কিছুকিছু গরু আসলেও এখন বর্ডার একেবারে বন্ধ। এই কোভিড-১৯ করোনা কালীন সময় এখন আমার জানামতে একটি সুতার নালও বর্ডার পাস হয়ে আসেনি। মধ্যনগর থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) নির্মল দে তিনি বলেন, বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড বিডিয়ার এর পাশাপাশি আমাদের অভিযান অব্যহত রয়েছে। কোন বাঙালী ভারতে যাওয়ার কোন সুযোগ নেই। তেমনি ভারতীয়রাও বাংলাদেশে আসার কোন সুযোগ নেই।

66 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন