২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

ধর্মপাশায় অসাধু সার বিক্রেতারা বাজারে সেন্ডিকেট তৈরীকরে দ্বিগুন দামে বিক্রি করছে

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২০, ২০২২

গিয়াস উদ্দিন রানা,ধর্মপাশা প্রতিনিধি(সুনামগঞ্জ):; সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলা ও নবগঠিত মধ্যনগর উপজেলার সর্বত্র হাটবাজারে খুচরা সার বিক্রেতারা বাজারে সেন্ডিকেট তৈরীকরে কৃষকদের কাছে চড়া দামে সার বিক্রি করছে বলে কৃষকদের ব্যাপক অভিযোগ।
চলতি আমন ফসল চাষাবাদের জন্য সরকার অনুমোদিত বি আর ডিসি অনুমোদিত রাসয়নিক সার কৃষকদের কাছে খুচরা বিক্রির জন্য উপজেলা কৃষি অফিস মাধ্যমে ৩০ হাজার টাকা জামানতের মাধ্যমে উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ড ভিত্তিক খুচরা সার বিক্রেতা নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এসব খুচরা সার বিক্রেতারা প্রতিটি ইউনিয়ন ভিত্তিক বিসিআইসি অনুমোদিত সার ডিলারদের কাছ থেকে স্ব স্ব ইউনিয়নের খুচরা সার বিক্রেতারা ডিলারদের কাছ থেকে ন্যায্য মূল্যে সার ক্রয় করে সরকার নির্ধারিত মূল্যে বিক্রি করার কথা থাকলেও খুচরা অসাধু সার ব্যবসায়িরা তাদের গোদামে সার মওজুত রেখে বাজারে সারের কৃতিম সংকট সৃষ্টি করে দ্বিগুন দামে সার বিক্রি করছে বলে অগনিত অভিযোগ রয়েছে।
সরকার নির্ধারিত ইউরিয়া সারের প্রতি ৫০ কেজি বস্তার মূল্য ১১০০ টাকা। তারা বিক্রি করছে ১২৫০ টাকা হতে ১৩০০ টাকা। ডি এ পি (লাল সার) প্রতি ৫০ কেজি বস্তা ৭৫০ টাকা। খুচরা বিক্রেতারা বিক্রি করছে ১৩০০ টাকা হতে ১৩৫০ টাকা। ধর্মপাশা উপজেলা সদরসহ মহদীপুর বাজার, জয়শ্রী, রাজাপুর, সুখাইড়, গোলকপুর, বাবুপুর, কান্দাপাড়া, বড়ই, সান, সেলবড়ষ ও পাইকুরাটি বাজার এবং মধ্যনগর উপজেলার র্বশীকুন্ডা বাজার, হামিদপুর চৌরাস্তা, দাতিয়ারপাড়া নতুন বাজার, মহেষখলা বাজার, গুলগাও, বাংঙ্গালভিটা ও রুপনগর বাজার। এসব বাজার গুলোতে খুচরা সার বিক্রেতারা সরকার নির্ধারিত মূল্যেও চেয়ে দ্বিগুন বেশী মূল্যে কৃষকদের কাছে সার বিক্রি করছে।
খুচরা সার ব্যবসায়িদের অভিযোগ তারা বলেন, বিসিআইসি ডিলারদের কাছ থেকে সার আনতে গিয়ে তাদের কেরিং খরচ বেশী হওয়ায় তারা বেশীদামে বিক্রি করছে।
ধর্মপাশা উপজেলা কৃষি অফিসার নাজমুল ইসলাম বদলি হয়ে ময়মনসিংহ যাওয়ার পর ওই উপজেলায় নতুন কৃষি অফিসার এর পদটি শূন্য থাকায় বক্তব্য দেওয়া সম্ভব হয়নি।

63 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন