১৮ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

শিরোনাম
বরিশাল শায়েস্তাবাদ চুড়ামন কমিউনিটি ক্লিনিকে থাকেনা ডাক্তার থাকেনা থোলা! দেখার কেউ নেই (পর্ব-১) ছাতা ধরে রাখলেন তরুণী রিকশাচালকের মাথায় হিজলার মেঘনায় ভাঙ্গন শুরু-ঝুকিতে পাঁচটি স্কুল-হুমকির মুখে উপজেলা প্রশাসনিক ভবণ সরকারের পূরণ হতে পারে মন্ত্রিসভার ‘শূন্যস্থান’ শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হকের ১৪৭ তম জন্মবার্ষীকিতে জীবন কর্মে পথচলা তথ্য হিজলা ডাক বিভাগের দুর্নীতির-অনিয়মের হালখাতা খুলছে ডাক বিভাগ – পর্ব ০২ আই ডি এল সি ফাইন্যাস সরকারি নির্দেশ অমান্য করে আদায়ের করে কিস্তি ,মাঠ কর্মীদের দেখে ব্যবসায়ীরা পালায়! (২য় পর্ব) বরিশালের  হিজলার মানচিত্রে শকুনের থাবা॥একক আসন মেহেন্দিগঞ্জ !(১ম পর্ব) বরিশাল হিজলায় রাজনীতি না ভিক্ষা চুরি নীতি

হিজলায় গ্রামবাসীকে মারধরের অভিযোগ কোস্টগার্ডের বিরুদ্ধে-রেহাই পায়নি অন্তঃসত্ত্বা

আপডেট: অক্টোবর ১২, ২০২১

বিজয় নিউজ:;বরিশালের হিজলা উপজেলার ভাঙ্গন কবলিত বাউশিয়া গ্রাম সংলগ্ন মেঘনা নদীতে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ইলিশ নিধনে কোস্টগার্ড সদস্যরা বাঁধা দিতে গেলে তাদের ট্রলার লক্ষ্য করে ঢিল ছুঁড়েছে একদল জেলেরা । এরপর কোস্টগার্ড সদস্যরা গ্রামের ভেতর ঘরে ঢুকে নির্বিচারে লাঠিপেটা করেছে বলে গ্রামবাসী অভিযোগ করেছেন। সোমবার সন্ধ্যা পৌনে ৬টায় এমন ঘটনা ঘটে।
কোস্টগার্ডের লাঠিপেটায় ৯ মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ ফারজানা বেগম (২০) গুরুতর আহত হয়ে হিজলা হাসপাতালে ভর্তি করেছে স্বজনরা। এছাড়া শাহাবুদ্দিন ঘরামি নামের একজনকে কোস্টগার্ড আটক করে নিয়ে গেছে।
বাউশিয়া গ্রামের একাধিক বাসিন্দা জানান, নদীর তীরে জেলেদের সঙ্গে ঘটনার জের ধরে কোস্টগার্ড সদস্যরা গ্রামের কয়েকটি বাড়িতে গিয়ে নারী-পুরুষদের বেধড়ক লাঠিপেটা করেছে। বাচ্চু হাওলাদার, মাহবুব বাঘা, ইউপি সদস্য জন্টু হাওলাদারসহ অনেককে বেধড়ক লাঠিপেটা করা হয়েছে।
অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ ফারজানা বেগম জানান, স্বামীর বাড়ি মুলাদী থেকে তিনি হিজলার বাউশিয়া গ্রামে বাবার বাড়িতে বেড়াতে এসেছেন। ঘটনার কয়েক মিনিট আগে তিনি বাবা জলিল বেপারীর ঘরে পৌঁছান। কোস্টগার্ড সদস্যরা ঘরের মধ্যে ঢুকে তাকে লাঠিপেটা করলে তিনি অজ্ঞান হয়ে পড়েন। স্বজনরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়।
কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ শাহরিয়াজ জানান রোগির চিকিৎসা চলছে, রোগি নিবির পর্যবেক্ষনে রয়েছে।
হিজলা উপজেলায় দায়িত্বরত কোস্টগার্ড জাহাজের কন্টিজেন্ট কমান্ডার মো. হামিদ গ্রামবাসীর অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে বলেন, নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মেঘনা বাউশিয়া পয়েন্টে জেলেরা ইলিশ নিধন করছিল। কোস্টগার্ডের জাহাজ সেখানে উপস্থিত হলে জেলেরা ট্রলার লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এসময় তাদের ধাওয়া করে নদীর তীর থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়। কোস্টগার্ডের সদস্যরা কারো বাড়ির মধ্যে ঢোকেনি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ সদস্যরাও গিয়েছিল।
ঘটনাস্থল হিজলার বড়জালিয়া ইউপির ৮ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য ঝন্টু হাওলাদার বলেন, ঘটনার পর কোস্টগার্ডের সদস্যরা মোবাইলে কল করে তাকে ঘটনাস্থলে ডেকে নেন। তখন গ্রামের লোকজন অভিযোগ করে, কোস্টগার্ড বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে নারী-পুরুষদের মারধর করেছে।
কোষ্টগার্ডের সহযোগি মাঝি আলম হাওলাদার জানান, তার চাচা বাচ্চু হাওলাদার এবং মেম্বার জন্টু হাওলাদারকেও কোষ্টগার্ড লাঠিপেটা করেন, মাহাবুব বাঘাকে না পেয়ে তার বাড়িতে হামলা চালায় কোষ্টগার্ড।

হিজলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইউনুস বলেন, এ ধরনের কোনো ঘটনা তার জানা নেই। হিজলা থানা পুলিশ সেখানে যায়নি। মা ইলিশ রক্ষায় নৌ-পুলিশসহ পুলিশের একাধিক টিম মাঠে রয়েছে। তাদের মধ্যে কেউ ঘটনাস্থলে যেতে পারেন।
উল্লেখ্য, মা ইলিশের প্রজনন নিরাপদ করতে গত ৪ অক্টোবর থেকে দেশের সব জলসীমায় ইলিশ নিধনে ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা চলছে।

38 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন