২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

ঝালকাঠির রাজাপুরের কেওতা গ্রামে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঘর তোলার অভিযোগ

আপডেট: এপ্রিল ২৭, ২০২২

ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ: ঝালকাঠির রাজাপুরের কেওতা গ্রামে ২৫ এপ্রিল বেলা পৌনে ১২ টার দিকে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোড়পূর্বক ঘর তোলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় বাঁধা দিতে গেলে গৃহবধু ৩ মাসের অন্তͦস্বত্ত্ব্ ানাজমা বেগম ও তার স্বামী সামছু হাওলাদার আহত হয়। জানা গেছে, রাজাপুর থানার শুক্তাগড় ইউনিয়নের কেওতা গ্রামের নাজমা বেগম এর কেওতা মৌজার ৯০১ নং খতিয়ানের ১৩৭৪ নং দাগের ২৪ শতাংশ জমি বেদখলের জন্য স্থানীয় ভুমি ও গাছ খেকো আল আমিন কতিপয় সন্ত্রাসী নিয়ে কাঠ দিয়ে ঘরের কাঠামো অন্যত্র তৈরি করে রাতের আঁধারে নাজমা বেগমের পৈত্রিক সম্পত্তির মধ্যে থাকা গভীর নলকূপ ও পুকুর ঘেরাও দিয়ে দখল করে উক্ত ঘরের ফ্রেম এনে দখল করার চেষ্টা করে, খবর পেয়ে ন্জামা বেগম ও তার স্বামীসহ অন্যান্যরা বাধা দিতে গেলে অন্তস্বত্তা নাজমা বেগমকে মারধর করে এবং তলপেটে লাথি দিয়ে আঘাত করে তাতে নাজমা বেগমের গর্ভে থাকা ভ্্রুণ নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে। পরে আহত নাজমা বেগমকে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসা হয়, এ সময় তার স্বামী সামছু এগিয়ে আসলে তার গলায় চাকু দিয়ে আঘাত করে তাকেও ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে চিকিৎসা করানো হয়। পরে ৯৯৯ নম্বরের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ আসলে বিবাদী আল আমিন, তার স্ত্রী, শ্যালক ও অন্যান্যরা দ্রুত পালিয়ে যায়। এ জমি নিয়ে ঝালকাঠিতে আদালতে মামলা চলমান এবং নিষেধাজ্ঞাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে উক্ত ভুমিখেকোরা দখলের চেষ্টা করছে এবং বর্তমানে নাজমা বেগম ও তার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুহছেন। এ বিষেয়ে প্রশাসনের নিরপেক্শ হস্থক্ষেপ কামনা করেন।

50 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন