২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

বরিশালে সবজি চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে

আপডেট: ডিসেম্বর ১৭, ২০২২

বিজয় নিউজ:; বরিশালে পাইকারি বাজারে দাম কমলেও খুচরা বাজারে চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে শীতকালীন সবজি। শনিবার (১৭ ডিসেম্বর) সকালে নগরীর একাধিক পাইকারি ও খুচরা বাজারে এমন চিত্র দেখা যায়।

বরিশাল বহুমুখী সিটি মার্কেটের মেসার্স হাওলাদার বাণিজ্যালয়ের মালিক আরিফুল ইসলাম বলেন, পর্যাপ্ত সবজি সরবরাহ থাকায় গত দুই সপ্তাহ ধরে সবধরনের সবজিতে কেজিপ্রতি ৫-১০ টাকা কমেছে। সামনে আরও কমবে।

তিনি জানান, গত সপ্তাহে বিটকপি (শালগম) ১৫ টাকা কেজি বিক্রি হলেও এ সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ১০ টাকা। ফুলকপি গত সপ্তাহে কেজি প্রতি ১৮ টাকা করে বিক্রি হলেও এ সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ১২-১৫ টাকা করে। গত সপ্তাহে কাঁচামরিচ ২৫ টাকা কেজি প্রতি বিক্রি হলেও এ সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ২০-২২ টাকা। টমেটো গত সপ্তাহে কেজি প্রতি ৬০ টাকা করে বিক্রি হলেও এ সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা করে। নতুন আলু গত সপ্তাহে কেজি প্রতি ৩০ টাকা করে বিক্রি হলেও এ সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা করে। বেগুন গত সপ্তাহে কেজিপ্রতি ছিল ২৫ টাকা এ সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা। বাঁধাকপি গত সপ্তাহে কেজিপ্রতি ২০ টাকা করে বিক্রি হলেও এ সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ১০ টাকা। মিষ্টি কুমড়া গত সপ্তাহে কেজিপ্রতি ছিল ২৫ টাকা এ সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা। গাজর গত সপ্তাহে কেজিপ্রতি ৩৫ টাকা করে বিক্রি হলেও এ সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ৩০-৩২ টাকা করে। শিম গত সপ্তাহে কেজি প্রতি ২৫ টাকা করে বিক্রি হলেও এ সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা করে।

এদিকে একই সবজি বরিশাল নগরীর খুচরা বাজার গুলোতে বিক্রি হচ্ছে ৩-৪ গুণ বেশি দামে। নগরীর বাংলাবাজার ঘুরে দেখা যায়, বিটকপি কেজি প্রতি ৪০ টাকা, ফুলকপি ৩০ টাকা, কাঁচা মরিচ ৪০ টাকা, টমেটো ৮০ টাকা, আলু ৩০ টাকা, বেগুন ৫০ টাকা, বাঁধাকপি ৩০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৪০ টাকা, সিম ৪০ টাকা কেজিপ্রতি বিক্রি হচ্ছে।

ওই বাজারে মোস্তফা কামাল নামের এক ক্রেতা বলেন, পাইকারি আড়ত থেকে নগরীর বাংলাবাজারের দূরত্ব দুই কিলোমিটার। এতটুকু দূরত্বে সবজির দামে কেজিপ্রতি পার্থক্য হতে পারে ২-৪ টাকা। কিন্তু ব্যবসায়ীরা কেজিতে ২-৪ গুন বেশি দাম নিচ্ছেন।

তৌহিদুল ইসলাম নামের এক ব্যবসায়ী জানান, মোকাম থেকে সবজি কেনার পর পরিবহন ব্যয় ও শ্রমিক মজুরি দিয়ে আনতে হয়। তারপর বাজারে সবজি নিয়ে বসলে সেজন্য ভাড়া দিতে হয়। লাইটের জন্য আলাদা টাকা দিতে হয়। অনেক সময় সবজি নষ্ট হয়ে গেলে আমাদের লোকসান গুনতে হয়। তাই খুচরা বাজারের সঙ্গে পাইকারি দরের তুলনা করে লাভ নেই।

এ ব্যাপারে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বরিশাল জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. শাহ্ শোয়াইব মিয়া বলেন, কেউ অযথা মূল্যবৃদ্ধি করলে জরিমানাসহ আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তাছাড়া নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের বিষয়ে বাজার তদারকিমূলক অভিযান নিয়মিত অব্যাহত রয়েছে।

12 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন