২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

নবগঠিত মধ্যনগরে বিজিডির চাল বিতরনে কারসাজি

আপডেট: জানুয়ারি ৮, ২০২৩

গিয়াস উদ্দিন রানা,ধর্মপাশা(সুনামগঞ্জ);; সুনামগঞ্জের নবগঠিত মধ্যনগর উপজেলাধীন উত্তর ও দক্ষিন বংশীকুন্ডা ইউনিয়নে অতিদরিদ্রদের মাঝে প্রতি মাসে সুবিদাভোগীর জন প্রতি ত্রিশ কেজি চাল বিনামূল্যে বিতরনের কথা থাকলেও উল্লেখীত দুই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কেরিং খরচ বাচানোর জন্য সুবিদাভোগীদের হয়রানি করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। অপর দিকে তাদেও বরাদ্দকৃত বিজিডির চাল উত্তোলনে আর্থীক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হছেন তারা। নীতিমালা অনুযায়ী তালিকা ভোক্ত সুবিদাভোগীদের বরাদ্দকৃত চাল নিজ নিজ ইউনিয়ন পরিষদে বিতরনের কথা থাকলেও ইউপি চেয়ারম্যানগন কেরিং খরচ বাচানোর জন্য এসব বিজিডির চাল মধ্যনগর খাদ্য গুদামের ভেতরে বিতরন করে আসছেন। মধ্যনগর খাদ্য গুদাম হতে মহেষখলা-ভাঙ্গাল ভিটা এলাকার দুরত্ব প্রায় ১৫ কি মি। হাপডাউনে তাদের প্রতি জনের খরচ ৫ হইতে ৭শ টাকা।
বংশীকুন্ডা দক্ষিন ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ রাসেল আহমদ ও বংশীকুন্ডা উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ নুর নবী তালুকদার কে মোবাইল ফোনে একাধিকভার চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।
উত্তর বংশীকুন্ডা ইউপির কলাচড়া গ্রামের বাসীন্দা রেখা, হেলেনা ও হাজেরা, বংশীকুন্ডা দক্ষিন ইউপির হামিদপুর গ্রামের বাসীন্দা কুলসুমা, শামীমা ও সাজনা তারা চেয়ারম্যানকে দুষারুপ করে বলেন, প্রতিমাসে ৩০ কেজি করে ২৪ মাস চাল পাবো ইউনিয়ন পরিষদ থেকে। কিন্তু চেয়ারম্যান খরচ বাছানোর জন্য চেয়ারম্যান সাহেব আমাদের উপর চাপিয়ে দিছেন। এসব বিজিডির চাল আনতে গিয়ে যে টাকা খরচ হয় তার চেয়েও কম টাকার চাল আমরা পাই।

33 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন