৫ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

মধ্যনগরে আদিবাসী প্রতিবন্ধী তরুণীকে অপহরনের অভিযোগে গ্রেপ্তার-১

আপডেট: নভেম্বর ১৫, ২০২২

গিয়াস উদ্দিন রানা,ধর্মপাশা সুনামগঞ্জ:: সুনামগঞ্জের মধ্যনগর উপজেলায় ভারতের সীমান্তবর্তী উত্তর বংশীকুন্ডা ইউনিয়নের পল্লীতে বাঙালী দুই লম্পট আদিবাসী এক প্রতিবন্ধী তরুনী (১৫)কে অপহরনের চেষ্টায় থানায় মামলা গ্রেপ্তার-১।
ধর্মপাশার মধ্যনগর উপজেলার ভারতের সীমান্তবর্তী উত্তর বংশীকুন্ডা ইউনিয়নের ৭ ওয়ার্ডের বান্ড্রা গ্রামের মৃত ছিদ্দিকুর রহমানের লম্পট ছেলে শাহাদাৎ হোসেন (২৫) একই গ্রামের মৃত রশিদ মিয়ার লম্পট ছেলে রফিকুল ইসলাম (৩৫) তারা দুজন মিলে গত ৯ নভেম্বর গভীর রাতে একই গ্রামের আদিবাসী মহল্লায় নগেন্দ্র হাজং এর বসত ঘরের পেছনে বসে থাকে। এমন সময় নগেন্দ্র হাজং এর প্রতিবন্ধী (১৫) বছরের তরুণী মেয়ে প্রয়োজনীয় কাজে ঘর থেকে বাহির হলে, ওই গ্রামের মৃত ছিদ্দিকুর রহানের লম্পট ছেলে শাহাদাৎত হোসেন ও মৃত রশিদ মিয়ার লম্পট ছেলে রফিকুল ইসলাম (৩৫) আদিবাসী নগেন্দ্র হাজং এর প্রতিবন্ধী (১৫) বছরের তরুণীকে অপহরনের চেষ্টায় দস্তা-দস্তির সময় প্রতিবন্ধী মেয়ের চিৎকারে আশপাশের আদিবাসীরা এসে মেয়েটিকে উদ্ধার করে।
পর দিন এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিরা বিষয়টি নিষ্পত্তি করতে গিয়ে ব্যর্থ হলে পর দিন মেয়ের বাবা আদিবাসী নগেন্দ্র হাজং বাদী হয়ে লম্পট শাহাদাৎ হোসেন(২৫) ও লম্পট রফিকুল ইসলাম (৩৫) কে আসামী করে মধ্যনগর থানায় একটি সাধারন ডায়রী করেন। গত ১২ নভেম্বর মধ্যনগর থানা পুলিশ রফিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে সুনামগঞ্জ জেলা কারাগারে প্রেরন করেছেন।
মধ্যনগর থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) জাহিদুল হক তিনি বলেন, রফিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে সুনামগঞ্জ জেলা কারাগারে প্রেরনকরা হয়েছে। শাহাদাৎকে গ্রেপ্তারের জন্য আমাদের অভিযান অব্যহত রয়েছে।

42 বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
  • ফেইসবুক শেয়ার করুন